Breaking News
Home / প্রথম পাতা / বিয়ে হয় না বলে নামাজরত মেয়েকে জ,বাই করেন মা

বিয়ে হয় না বলে নামাজরত মেয়েকে জ,বাই করেন মা

ঘ’ট’নার একদিন পর মা নিজেই স্বী’কা’র ক’র’লেন, আ’ত্ম’হ@ত্যা ক’রেনি তার মেয়ে, তিনি নিজেই পেছন দিক থেকে জাপটে ধরে ধা’রা’লো ছু’রি দিয়ে জ’বা’ই ক’রেছেন।

বছর পঁচিশের তরুণী মাহবুবা আক্তার মেরী তখন নামাজরত অ’ব’স্থায় ছিলেন। তাই ঘ’ট’নার আগে মায়ের ফন্দি কিছুই বুঝতে পারেনি। গতকাল শনিবার দুপুরে ১৬৪ ধারায় দেওয়া জ’বা’নব’ন্দিতে ঘ’ট’নার বিস্তারিত তুলে ধরেন জাহানারা বেগম। রংপুরের জু’ডি’শি’য়া’ল ম্যা’জি’স্ট্রে’ট আ’দা’ল’ত ৪-এর বি’চা’রক আল-মেহেবব তার জ’বা’নব’ন্দি রেকর্ড ক’রেন।

রংপুরের বদরগঞ্জ উপজে’লার বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের বুজরুক হাজিপুর গাছুয়াপাড়ায় গত শু’ক্রবার নিজের ঘরে খু ন হন মাহবুবা আক্তার মেরী। প্রথমে পরিবারের পক্ষ থেকে এটিকে আ’ত্ম’হ@ত্যা বলে দাবি করা হলেও স’ন্দে’হ হয় পু’লি’শের। তাই ঘ’ট’নাস্থল থেকে মা জাহানারা বেগম ও বাবা মেনহাজুল হককে আ’ট’ক করা হয়। জে’লা পু’লি’শ সুপার বিপ্লব কুমার সরকার জানান,

গলায় কা’টার ধরন এবং পারিপার্শ্বিক কিছু বিষয় থেকে এটি আ’ত্ম’হ@ত্যা মনে হয়নি। তাই নি’হ’তের বাবা-মাকে জি’জ্ঞা’সা’বা’দের জন্য হেফাজতে নেওয়া হয়। একপর্যায়ে জাহানারা বেগম প্রকৃত ঘ’ট’নাটি খু’লে বলেন এবং একাই মেয়েকে খু নের কথা স্বী’কা’র ক’রেন। নিজের মেয়েকে হ; ত্যার কারণ হিসেবে জাহানারা জানিয়েছেন, মেরী মৃগীরো’গে আ’ক্রা’ন্ত ছিলেন।

এ কারণে তার বি’য়ে হচ্ছিল না। তার চিকিৎসাতেও প্র’চু’র টাকা ব্যয় হয়। এসব কারণে মেরীর স’ঙ্গে পরিবারের সদস্যদের প্রায় সময়ই ঝ’গ’ড়াঝাটি হতো। শু’ক্রবারও মা ও মেয়ের মধ্যে ঝ’গ’ড়া হয়। এতেই ক্ষি’প্ত হন জাহানারা এবং আসরের নামাজ পড়ার সময় পেছন দিক থেকে জাপটে ধরে ধা’রা’লো ছু’রি চালান নিজের মেয়ের গলায়। ঘ’ট’নাস্থলেই মৃ.ত্যু হয় মেরীর।

এদিকে প্রতিবেশীরা জানান, শু’ক্রবার বিকাল ৪টার দিকে ওই ঘ’ট’নাটি ঘটলেও পরিবারের লোকজন তাদের কাউকে কিছুই জানায়নি। সন্ধ্যার অনেক পর আত্মীয়স্বজনরা ওই বাড়িতে এসে কা’ন্নাকাটি শুরু ক’র’লে প্রতিবেশীরা তখন বুঝতে পারেন, কেউ মা’রা গেছে। আশপাশের লোকজন তখন ছুটে গেলে মৃগীরো’গের কারণে মেরী আ’ত্ম’হ@ত্যা ক’রেছে বলে জানায় পরিবারটি।

খবর পেয়ে রাত ৮টার দিকে ঘ’ট’নাস্থলে যায় পু’লি’শ। এর পর সি’আ’ইডির ক্রা’ইম’সিন টিমের সদস্যরাও গিয়ে তথ্য-প্রমাণ সংগ্রহ ক’রে। বদরগঞ্জ থা”নার পরিদর্শক হাবিবুর রহমান এটিকে র’হ’স্যজনক দাবি ক’রেছিলেন তখনই। গলায় ধা’রা’লো অ’স্ত্র দিয়ে এ’কা’ধি’ক পোচের দাগ, পরিবারের পক্ষ থেকে যথাসময়ে থা”নায় খবর না দেওয়াসহ পারিপার্শ্বিক বিভিন্ন বিষয় পর্যালোচনা ক’রে এটিকে আ’ত্ম’হ@ত্যা হিসেবে মেনে নিতে পারেনি পু’লি’শ।

যদিও মেয়ের মা জাহানারা বেগম বলেছিলেন, চি’ৎ’কা’র শুনে ঘরে গিয়ে দেখেন তার মেয়ের গলা দিয়ে র”ক্ত ছুটছে এবং ছটফট করতে করতে একপর্যায়ে সে নিস্তেজ হয়ে যায়। জাহানারার দাবি ছিল, মৃগীরো’গের যন্ত্রণা সহ্য করতে না পেরে নিজেই নিজের গলা কে’টে আ’ত্ম’হ@ত্যা ক’রেন মেরী।স্থা’নী’য়রা জানান, মেরী স্থা’নী’য় ওয়ারেসিয়া দাখিল মাদ্রাসায় এক সময় পড়ালেখা ক’র’লেও অসু’স্থতার কারণে তা চালিয়ে যেতে পারেননি।

রক্ষণশীল ওই পরিবারটির স’ঙ্গে প্রতিবেশীদেরও তেমন কোনো স’ম্প’র্ক ছিল না। তবে মেরী শান্ত স্বভাবের ছিল বলে জানিয়েছেন আশপাশের লোকজন। তার বাবা মেনহাজুল হক রামনাথপুর বিইউ দাখিল মাদ্রাসার সুপারিন্টেনডেন্ট। ঘ’ট’নার সময় অবশ্য তিনি বাড়িতে ছিলেন না। এ কারণে তাকে ছেড়ে দেওয়া হবে বলে জানান পু’লি’শ সুপার বিপ্লব কুমার। এ ঘ’ট’নায় নি’হ’ত মেরীর চাচা সিরাজুল ইসলাম বা’দী হয়ে বদরগঞ্জ থা”নায় একটি হ; ত্যা মা.ম’লা দা’য়ে’র ক’রেছেন।

error: Content is protected !!